করোনা আতঙ্কে ভূটানে পর্যটক প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা

2

নিজস্ব প্রতিবেদক:
করোনার থাবা ভুটানেও। ভারত থেকে সে দেশে যাওয়া এক ব্যক্তির দেহে করোনার হদিশ মিলেছে। পাশাপাশি আক্রান্ত সন্দেহে দুই জার্মান পর্যটক-সহ মোট ছ’জনকে থিম্পু হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ডে রাখা হয়েছে। সংক্রমণের সন্দেহে স্ক্রিনিং চলছে অন্তত ৯০ জনের। আর একের পর এক এই ঘটনায় দেশে পর্যটকদের প্রবেশের উপর সাময়িক নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে ভুটান সরকার।
গতকাল শুক্রবার থেকে ভারতীয়সহ সব বিদেশি পর্যটকদের জন্যে দেশের দরজা বন্ধ করে দিল ভূটান। এখনও পর্যন্ত বিশ্বের ৯৩টি দেশে মিলেছে করোনাভাইরাস আক্রান্তের খোঁজ। করোনার কবল থেকে ভূটানকে বাঁচাতেই এই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে প্রশাসন। প্রসঙ্গত, বৃহস্পতিবার বিদেশি পর্যটকদের সিকিম ঢোকার অনুমতি দেওয়া বন্ধ করা হয়।
ভুটানের প্রধানমন্ত্রী লোটে শেরিং সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি পোস্টের মাধ্যমে এই কথা জানিয়েছেন। সেইসঙ্গে তিনি আরও জানান, আগামী ২ সপ্তাহ ভুটানে প্রবেশের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। রাজধানী থিম্ফুসহ আরও তিনটি অঞ্চলে আগামী ২ সপ্তাহ বন্ধ রাখা হবে সমস্ত স্কুল।
প্রতিদিন কলকাতা থেকে অন্তত ১৫০ জন পর্যটক বিমানে ভূটানে ভ্রমণে যান। আরও প্রায় ৩৫০ পর্যটক রোজ দার্জিলিয়ের ফুংশেলিং সীমান্ত দিয়ে ভূটানে প্রবেশ করেন। শুক্রবার এই পথ ধরেই ভূটান থেকে দার্জিলিং ফিরে আসেন প্রায় ১২০০ পর্যটক।
পশ্চিমবঙ্গের পর্যটন মন্ত্রী গৌতম দেব জানিয়েছেন, কোথাও কোনও পর্যটক আটকে পড়লে তাঁদের সব রকম সাহায্য করবে রাজ্য সরকার। প্রসঙ্গত, সিকিম এবং ভূটানে পর্যটনের মওশুম শুরু হয় এপ্রিল থেকে, চলে জুন মাস পর্যন্ত।