চট্টগ্রামের এক প্রবাসীকে ‘ক্রস ফায়ার’

3

চাঁদা দিতে না পারায় ইয়াবা ব্যবসায় জড়িত থাকার অভিযোগ এনে চট্টগ্রামের পটিয়া থেকে ওমান ফেরত এক যুবককে তুলে কক্সবাজারে নিয়ে ‘ক্রসফায়ারে হত্যা‘র অভিযোগে আদালতে একটি মামলা হয়েছে।
নিহত মোহাম্মদ জাফর পটিয়া উপজেলার কচুয়াই ইউনিয়নের কথামোজা গ্রামের আব্দুল আজিজের ছেলে।
মোহাম্মদ জাফরের মামা আহমদ নবী বাদী হয়ে রোববার পটিয়ার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট বিশ্বেশ্বর সিংহের আদালতে মামলাটি দায়ের করেছেন।
এ মামলায় চকরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ও হারবাং পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতনামা আরও কয়েকজন পুলিশ সদস্যকে আসামি করা হয়। আদালত সিআইডিকে তদন্ত করে এ বিষয়ে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দিয়েছেন বলে বাদির আইনজীবী নুর মিয়া জানিয়েছেন।

মামলায় অভিযুক্তরা হলেন— চকরিয়া থানার ওসি হাবিববুর রহমান ও চকরিয়া উপজেলার হারবাং পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ উপপরিদর্শক (এসআই) আমিনুল ইসলাম। অজ্ঞাতনামা আরও ১০ থেকে ১৫ জন পুলিশ সদস্যকে মামলায় আসামি করা হয়েছে।

বাদীর আইনজীবী নুর মিয়া বলেন, ৫০ লাখ টাকা চাঁদা চেয়ে না পেয়ে জাফরকে ইয়াবা ব্যবসায়ী সাজিয়ে হত্যার অভিযোগে মামলা দায়ের করা হয়েছে। আদালত মামলা গ্রহণ করেছেন এবং সিআইডিকে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন।
মামলার আরজিতে বাদী অভিযোগ করেছেন, জাফর দীর্ঘদিন ধরে ওমানে ছিলেন। করোনা ভাইরাস সংক্রমণ শুরুর আগে তিনি দেশে ফেরেন, কিন্তু লকডাউন শুরু হওয়ায় আর ওমানে যেতে পারেননি। গত ২৯ জুলাই রাতে সাদা পোশাকধারী কিছু লোক এসে জাফরকে তুলে নিয়ে যায়। এরপর চকরিয়া থানার এসআই আমিনুল ফোন করে ৫০ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করেন। টাকা দিতে না পারায় ৩১ জুলাই তাকে ক্রসফায়ারে হত্যা করা হয়