নারায়নগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জে স্ত্রীকে নির্যাতন করার প্রতিবাদ করায় স্বামীর উপর হামলা

2296

বখাটেরা বেপরোয়া প্রতিবাদেই হামলা

 

 

নারায়নগঞ্জ, সিদ্ধিরগঞ্জ,৩নং ওয়ার্ডের মুক্তিনগর এলাকায় স্থায়ী বাসিন্দা মো. তাহেরুল ইসলাম এর স্ত্রী নাহিদা আক্তার কে উত্তক্ত ও আশালীন ভাষা ও অঙ্গভঙ্গি প্রকাশ করায় ভুক্তভোগীর স্বামী মো. তাহেরুল আসামী মো.হিমেল (মাদক মামলার আসামী) কে জিজ্ঞাসা করায় তর্কাতর্কির এক পর্যায়ে মো.তাহেরুল ইসলামের উপর দেশীয় অস্ত্রপাতি দিয়ে হামলা করে ।

এ সময় এলাকার সাধারণ মানুষরা তাহেরুল ইসলাম কে বাঁচাতে গেলে তারা এলাকার সাধারণ মানুষদের ও মারধর করে।মো.শাহ আলম(ডাকাত মামলার আসামী)আসামী হিমেলের মদদদাতা, আলমগীর(চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী),আনু(বিভিন্ন পরকীয়ার সাথে জড়িত)ওদের নেতৃত্বে রুবেল(মাদক সেবনকারী এবং মেয়েদের এক মূর্তিমান আতঙ্ক), সবুজ(ধর্ষন মামলার আসামী),লিয়ন,রবিন(ছাত্র শিবির),মনির,জাকির,বিল্লাল,আলমগীর(চাপাতি আলমগীর),খোকন,ইমন,সিয়াম(বখাটে) আরো অজ্ঞাত ২০ থেকে ৩০ জন ভাড়াটিয়া গুন্ডা নিয়ে ভুক্তভোগীর বাসা ভাঙচুর করে এবং বাড়িতে থাকা মহিলাদের উপর আক্রমন করা হয়।

উক্ত আসামীরা মাঝেমধ্যেই এলাকার বাড়িওয়ালাদের নিটক থেকে চাঁদা আদায় করে থাকে এবং চাঁদা না দিলে তাদের উপর অতর্কিত হামলা করে এবং আজ ১২ তারিখ উক্ত আসামীরাই মামলা থেকে বাঁচতে এক মিথ্যা মানববন্ধনের আয়োজন করে এ অবস্থায় তারা ভুক্তভাগীর স্বামী মো.তাহেরুল ইসলাম এবং এলাকার কিছু স্থায়ী বাসিন্দাদের বিরুদ্ধে মাদক ব্যবসায়ীর এর মিথ্যা ঘটনা রচনা করে, থানায় কথা বলে জানা যায় ওনাদের নামে একটা জিডি পর্যন্ত নেই এবং এলাকার মুরুব্বি এবং স্থায়ী বাসিন্দাদের সাথে কথা বলে জানা যায় যে তাদের মতন সুশীল মানুষ কম ই দেখা যায়। চিহ্নিত আসামীরা আজ ১২ তারিখ সকাল ৯ টার দিকে এলাকার তিন তালা মসজিদ থেকে মানুষ সংগ্রহের জন্য ঘোষনা করা হয়,এটা মসজিদ কমিটির জন্য এক বিরাট ব্যর্থতা এবং উক্ত আসামিরা মসজিদ কমিটির কথা অমান্য করে এ কর্মকান্ড করে এলাকার মানুষকে বিভ্রান্ত করে।

০৩ নং ওয়ার্ডের মানুষ এই মিথ্যে মানববন্ধনের তীব্র প্রতিবাদ জানায় এবং চিহ্নিত আসামী শাহ আলম এবং আনু গ্যাং দের শাস্তি দাবি করে।