মসজিদে এসি বিষ্ফোরনের ঘটনায় মুসল্লিদের জীবন মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে মডেল গ্রুপের নিরলস সেবা

26

গতকাল ৪ সেপ্টেম্বর শুক্রবার তল্লা বড় মসজিদ এলাকার বিপরীত পশ্চিম তল্লা এলাকায় বাইতুস সালাত জামে মসজিদে যথারীতি মুসল্লিগণ এশা’র নামাজ আদায় করছেন। ইমাম সাহেবের পিছনে চার রাকআত ফরজ আদায় শেষে মুসুল্লিগণ বাকী নামাজ আদায়ে ব্যস্ত। হটাৎ বিদ্যুৎ চলে গেলে আচমকা বিকট শব্দে ভয়ানক বিষ্ফোরন একে একে ছয়টি এসি দুমড়ে গেলো সাথে আগুলের লেলিহান শিখা আর আর্ত চিৎকারে ভারি হয়ে গেলো গোটা এলাকা।

স্হানীয় জনগণের চেষ্টায় একের পর এক বের হয়ে আসতে থাকে অর্ধ দগ্ধ পুর্ন দগ্ধরা। মডেল গ্রুপের এম্বুলেন্সে করে আবার কাউকে রিক্সাযোগে নারায়ণগঞ্জ ভিক্টোরিয়া হাসপাতালে নেয়ার চেষ্টায় ছুটাছুটি। অবশেষে দগ্ধ সবাইকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব হাসপাতালে শেখ হাসিনা বার্ণ ইউনিটে স্হানান্তর করা হয়। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত এক শিশুসহ ১৪ মুসুল্লি মৃত্যুবরণ করেছে এবং বাকী সবার অবস্হা আশংকাজনক।
স্থানীয়রা বলছেন, দুর্ঘটনার পর থেকে তল্লা এলাকার কৃতি সন্তান মডেল গ্রুপের ব্যবস্হাপনা পরিচালক মাসুদুজ্জামান মাসুদ সাহেবের নির্দেশে দগ্ধ মুসুল্লিদের ভিক্টোরিয়া হাসপাতাল ও ঢাকায় স্হানান্তরে মডেল গ্রুপের এ্যাম্বুলেন্স ও সেচ্ছাসেবকগণ নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। দুর্ঘটনার রাতে ঢাকায় গভীর রাত অবধি অসহায়দের পাশে থেকে সেবা চলমান রেখেছে মডেল গ্রুপ। যা চলমান আছে এবং থাকবে।