মহেশখালীতে ভাঙা ব্রীজ নিয়ে মানুষের ভোগান্তির শেষ নেই

2

মহেশখালী প্রতিনিধি: মহেশখালী উপজেলার কালারমারছড়া ইউনিয়নের উত্তর নলবিলা আফজলিয়াপাড়ায় মীর আকতার হোসেন কনস্ট্রাকশন লিমিটেডের কারণে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে উক্ত এলাকাবাসিন্দারা। এই ঠিকাদারী কোম্পানির অপরিকল্পিত উন্নয়ন কর্মকান্ডের কারণে নানাভাবে মানুষের ক্ষয়ক্ষতি হচ্ছে বলে জানিয়েছেন ভোক্তাভোগিরা। ইতিমধ্যে বৃষ্টিতে জলাবদ্ধতা হয়ে পানিতে ডুবে যাচ্ছে বসতবাড়ি। তলিয়ে যাচ্ছে গ্রামীণ সড়ক। তাই এবার বাধ্য হয়ে এই ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে রাস্তায় নেমেছে ভুক্তভোগী মানুষ।

২৯ মে (শুক্রবার) বিকাল ৪ ঘটিকার সময় উত্তর নলবিলা আফজিলায়া পাড়া এলাকা সংলগ্ন জনতাবাজার-কালারমারছড়া গোরকঘাটা প্রধান সড়কে উক্ত কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়।

মানববন্ধনরত স্থানীয় ভুক্তভোগী জনসাধারণ বলেন, “মীর আকতার কোম্পানীর অপরিকল্পিত উন্নয়ন কাজের ফলে একের পর এক ক্ষতি হলেও, কোম্পানীর বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নিচ্ছে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। সড়কে অপরিকল্পিতভাবে কালভার্ট নির্মাণ করতে গিয়ে আফজলিয়া পাড়া মাদ্রাসা সড়কের গাইড ওয়ালের ভিত্তি হতে মাটি সরে গিয়ে উক্ত গাইড ওয়ালটি পড়ে যায়।

ফলে পাহাড়ী ঢলের পানির স্রোতে মাদ্রাসা সড়কটি বিলিন হয়ে যায় ,এতে ঐ সড়কে দিয়ে যাতায়াতকারী লোকজন সহ মাদ্রাসায় যাতায়াতও বন্ধ হওয়ার উপক্রম দেখা দিয়েছে।

অনতিবিলম্বে সড়কটি পুনরায় সংস্কার ও গাইড ওয়াল নির্মাণ সহ বিভিন্ন ক্ষতিপূরণের জোর দাবী জানান তারা।

জানা গেছে, সম্প্রতি মীর আকতার কোম্পানীর অপরিকল্পিত ব্লক নির্মান করার ফলে বৃষ্টির পানিতে ১৫ টি পরিবার তাদের বসত ঘরে পানি ডুকে তাদের সমস্ত মালামাল নষ্ট হয়ে যায়। খবর পেয়ে ওই দিন সন্ধ্যায় উপজেলা সহকারি কমিশনার ভূমি সুইচিং মারমা ঘটনাস্থল পরির্দশন করে মীর আকতার কোম্পানীর সংশ্লিস্ট কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেন যে যথা সময়ে ওই সব বাড়ির মালিকদের ক্ষতিপুরন ব্যবস্থা করতে। আজোও কোন অদৃশ্য শক্তির ইশারায় তারা কোন ধরনের ক্ষতি পূরণ দেয়নি বাড়ির মালিকদের।

স্থানীয়রা জানান, মাননীয় প্রধান মন্ত্রী ঘোষনা দিয়ে স্থানীয়দের ক্ষতি করে কোন উন্নয়ন প্রকল্প হবেনা, কিন্তুু মীর আকতার কোম্পানী পদে পদে অনিয়ম করে স্থানীয়দের সবচেয়ে বড় ক্ষতির কারন হয়ে উঠেছে।

প্রশাসনকে এই বিষয়ে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহন করতে আকুল আবেদন জানিয়েছেন এলাকাবাসী। এ বিষয়ে মীর আকতার কোম্পানীর মাতারবাড়ী ব্রীজ প্রজেক্টে ম্যানেজার সাইয়ামের মুঠোফোনে ০১৭১২-৫৩০৩২৪ যোগাযোগ করা হলে তার বক্তব্য নেওয়া সম্ভাব হয়নি