রিমান্ডের মাঝে অসুস্থ বোধ করায় হাসপাতাল ঘুরে এলেন সাহেদ

1

ফারমার্স ব্যাংকের (বর্তমান পদ্মা ব্যাংক) অর্থ আত্মসাতের মামলায় সাত দিনের রিমান্ডের এক দিনের মাথায় ‘অসুস্থ বোধ করায়’ রিজেন্ট গ্রুপের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সাহেদ ওরফে সাহেদ করিমকে হাসপাতালে নিয়ে স্বাস্থ্য পরীক্ষা করিয়ে এনেছে দুর্নীতি দমন কমিশন-দুদক।

এ কারণে মঙ্গলবার সাহেদকে দ্বিতীয় দিনের জিজ্ঞাসাবাদ করা সম্ভব হয়নি বলে দুদকের পরিচালক (জনসংযোগ) প্রণব কুমার ভট্টাচার্য্য জানিয়েছেন। তিনি বলেন, সাত দিনের রিমান্ডে পেয়ে সোমবার সাহেদ করিমকে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করে দুদক।

“প্রথম দিনের জিজ্ঞাসাবাদ শেষে সন্ধ্যায় তাকে রমনা থানার হাজতখানায় রাখা হয়েছিল। কিন্তু রাতে অসুস্থ বোধ করলে তাকে আজ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।”

প্রণব জানান, হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে এবং স্বাস্থ্য পরীক্ষা করিয়ে বেলা ২টার দিকে সাহেদকে আবার দুদকে নেওয়া হয়।

“তিনি এখন সুস্থ আছেন। হাসপাতালে স্বাস্থ্য পরীক্ষায় তার কোনো জটিলতা দেখা যায়নি। তদন্ত কর্মকর্তা যদি মনে করেন, তাহলে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।”

ফারমার্স ব্যাংকের গুলশান করপোরেট শাখার কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে দুদক প্রধান কার্যালয়ের উপ-সহকারী পরিচালক মোহাম্মদ শাহজাহান মিরাজ বাদী হয়ে গত ২৭ জুলাই এ মামলা দায়ের করেন।

সাহেদ ছাড়াও পদ্মা ব্যাংকের সাবেক অডিট কমিটির সাবেক চেয়ারম্যান মাহবুবুল হক রফে বাবুল চিশতী চিশতী, তার ছেলে রাশেদুল হক চিশতি এবং রিজেন্ট হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. ইব্রাহিম খলিলকে আসামি করা হয়েছে এ মামলায়।

দুদকের এ মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে গত ১০ অগাস্ট সাহেদকে ঢাকার মহানগর দায়রা জজ আদালতে হাজির করা হলে বিচারক কে এম ইমরুল কায়েশ সাতদিন রিমান্ড মঞ্জুর করেন।